ইফতারীর পরে খুব ক্লান্ত লাগে কেন?

0
114
ইফতারের পরে ক্লান্ত লাগে কেণ?

বর্তমানে বাংলাদেশের মানুষ প্রায় ১৫ ঘন্টা রোজা রাখছে। আবার তীব্র গরম ও রোদ, মানুষের জীবন যায় যায় অবস্থা। মহান আল্লাহর অনুগ্রহ পাওয়ার আশায় হাজার হাজার মুসলিম রোজা পালন করছে। অপরদিকে খাদ্য দ্রব্যর মূল্য আকাশ সমান হয়ে গেছে। মধ্যেবিত্তের মানুষ গুলো দিশেহারা অবস্থা। এই মানুষগুলো সারা দিন রোজা রেখে ইফতারের পরে ক্লান্ত হয়ে পরে। আসুন জেনে নেই ইফতারের পরে ক্লান্ত বা ঘুম কেন লাগে?

ইফতারীর পরে খুব ক্লান্ত লাগে কেন?

১) অনেকে সাহরীতে খাবার খায় বেশি কিন্তু পানি পান করে কম। এতে সারাদিন কাজকর্ম করতে গিয়ে শরীর থেকে প্রচুর পরিমানে পানি বেড়িয়ে যায় ফলে আমাদের পাকস্থলী ও শরীরের টিস্যু পানি শূণ্য হয়ে পরে। ইফতারের পরে পানি খেলে কিছু সময় লাগে সমস্থ শরীরের অঙ্গ প্রতঙ্গে পৌছাতে। এর ফলে আমাদের শরীরে ক্লান্ত ভাব চলে আসে।

২) আমাদের একটা বদ অভ্যাস যে, ভাজা পোড়া ছাড়া ইফতারী জমে না। আপনি একবার চিন্তা করে দেখুন তেলে ভাজা খাবার গুলো খেতে সবাই নিষেধ করে। অথচ আমরা সবাই ইফতারীতে তেলে ভাজা খাবার খেয়ে থাকি। যা আমাদের ষ্টমাক স্বাভাবিক ভাবে ধারন করতে পারে না কারন আপনি রোজা পালন করার জন্য আপনার ষ্টমাক একেবারে শূণ্য ছিল।

৪) অনেকের মাঝে দেখা য়ায় ইফতারীতে গ্লাসের পর গ্লাস পানি খেয়ে থাকে। এটা ঠিক নয় কারন আপনি সারাদিন রোজা থাকার পরে আপনার শরীর সম্পূর্ণ খাবার বিহীন ছিল। তাই আপনার শরীর থেকে প্রচুর ক্যালোরী খরচ হয়ে গেছে যা ইফতারীতে আপনাকে পূরণ করতে হবে। তাই ইফতারীতে প্রচুর পানি না খেয়ে ক্যালোরী যুক্ত খাবার খান। পানিও খান তবে অতিরিক্ত নয়।

৫) ইফতারীতে বেশি করে ফল খাওয়ার চেষ্টা করুন। তাছাড়া ঠান্ডা জাতিয় প্রোটিনযুক্ত খাবার খাবেন। ইফতারীর ১ ঘন্টা পরে আপনি প্রচুর পরিমানে পানি পান করুন। এতে আপনার আর কোন সমস্যা হবে না।

৬) টানা ১৫ ঘন্টা না খেয়ে থাকার কারনে বডি গ্লুকোজ রিজার্ভ ও সঞ্চিত শক্তি ভান্ডার ফুরিয়ে যায়। তাই ইফতারীর আগে বডি শুধু বিএমআর মেইন্টেইন করার এনার্জি রাখে। ঠিক তখন আমরা যখন ইফতার করে থাকি এবং তখন আমরা শক্তি উৎপাদনের জন্য বেশি করে প্রোটিন জাতীয় খাবার খায়। যা আমাদের শরীর গ্রহণ করতে পারে না।

এতে বোঝা যায় যে, রোজা থাকার কারনে আমাদের প্রচুর ক্যালোরী খরচ হওয়ার কারনে আমাদের শরীরে ক্লান্তি ভাব চলে আছে যা আমাদের এড়িয়ে চলতে অনেকটা সময় লাগে। তাই পেটপুরে খাবার না খেয়ে স্বাস্থ্যকর খাবার পরিমান মত খাবেন।

বিঃদ্রঃ নিয়মিত পোষ্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন এবং সেই সাথে এই পোষ্টটি আপনার ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here