গরুর মাংস খেলে কী হয়? গরুর মাংসের উপকারীতা ও অপকারীতা

6
748
গরুর মাংস

সমগ্র পৃথিবীর মুসলিম জাতির জন্য মহান আল্লাহ্ তালা গরুর মাংস হালাল করে দিয়েছেন। গরুর মাংস একটি পুষ্টিগুন ভরপুর একটি খাবার। তবে আমরা গরুর মাংস খাওয়ার সময় খুব অতিরিক্ত খেয়ে থাকি যা আমাদের পুষ্টিগুন নষ্ট করে দেয়। এক টুকরো গরুর মাংসে আমরা যা পুষ্টি পেয়ে থাকি যা অন্য কোন প্রানীর মাংসে নেই। মুলত কোরবানীর ঈদে গরুর মাংস খাওয়ার ধুম পরে যায়। এতে আমাদের অনেক উপকার হয় আবার অপকারও হয়। তবে চলুন সে গুলো জেনে নেয়া আমাদের সবার শ্রেয়।

উপকারীতা সমূহঃ
আমার যে সকল উপাদান গরুর মাংসে পেয়ে থাকি তা নিম্নরুপ আলোচনা করা হলো-

জিংকঃ গরুর মাংসের জিংক মানব দেহে ২৫ শতাংশ শোষিত হয়ে থাকে যা আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এছাড়াও শরীরের পেশি ও হাড় গঠন করতে সাহায্য করে থাকে।

আয়রনঃ শরীরে আয়রনের ঘাটতি থাকলে অনেকে বলে থাকে গরুর মাংস খেতে, কথাটা সত্য। অন্যান্য খাবারের থেকে গরুর মাংসে পর্যাপ্ত আয়রন থাকে যা মানব দেহের জন্য অত্যান্ত উপকারী। আয়রন আমাদের দেহে রক্ত স্বল্পতা দূর করে এবং প্রতিটা কোষে অক্সিজেন সরবরাহ করে থাকে।

ফসফরাসঃ আমাদের শরীরের হাড়, দাঁত ও মাড়ি মজবুত করতে গরুর মাংসের ফসফরাস বিশেষ ভাবে ভুমিকা পালন করে থাকে। তাছাড়া আমাদের শরীরের কোন অংশ ক্ষয়প্রাপ্ত হলে তা পূরণ করতে সাহায্য করে।

ক্যালসিয়ামঃ গরুর মাংসের তুলনায় গরুর পায়ে এবং মাথার মগজে প্রচুর ক্যালসিয়াম বিদ্যমান। অনেক সময় দেখা যায় অনেকে ক্যালসিয়ামের অভাবে ভুগে থাকে এবং ক্যালসিয়ামের ঔষধ সেবন করে থাকে। সেই ক্ষেত্রে পরিমান মত গরুর পা ভালো ভাবে রান্না করে খেলে ক্যালসিয়ামের অভাব পূরণ হয়।

উপরোক্ত বিষয়গুলো ছাড়াও গরুর মাংসের অন্যতম একটি গুন যা সেক্স বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে থাকে। তাই যাদের সেক্স দূর্বলতা আছে তারা পরিমান মত গরুর মাংস খেতে পারেন।

অপকারীতা সমূহঃ
আমরা না জেনে না বুঝে ইচ্ছামত গরুর মাংস খেয়ে থাকি যা আমাদের প্রচুর পরিমানে ক্ষতি করে থাকে। গরুর মাংসে আছে কোলেষ্টেরল, সোডিয়াম ও ফ্যাট যা আমাদের ক্ষতি করে। অতিরিক্ত গরুর মাংস খেলে শরীরে রক্তে চর্বি বা মেদ বেড়ে যায়, উচ্চ রক্তচাপ সৃষ্টি করে। এছাড়াও হৃদরোগের ঝুকিঁ অনেক বেশি থাকে। গরুর মাংস বেশি খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য হয় এবং অতিরিক্ত প্রোটিনের কারনে কিডনি রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা থাকে। সোডিয়াম চর্বি জমতে সাহায্য করে আর রক্ত নালীতে চর্বি জেমে ষ্ট্রোকের মাত্রাও বেড়ে যেতে পারে। এছাড়াও অতিরিক্ত গরুর মাংস খেলে শরীরে ইউরিক এসিডের মাত্রা বেড়ে যায়। বাচ্চাদের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র এক টুকরো মাংস খাওয়ানো উচিৎ নতুবা অতিরিক্ত মাংস খেলে বাচ্চার অতিরিক্ত ঘাম হতে পারে, বুক ধরফর হতে পারে, অস্থিরতা সৃষ্টি হতে পারে। ঘন ঘন শ্বাস প্রশ্বাস হতে পারে এবং কোষ্ঠকাঠিণ্য সৃষ্টি হবে।

একটা বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবে, প্রতিটা খাবারের কিছু ভারো দিক ও কিছু খারাপ দিক থাকে। তবে পরিমান মত সব খাবারই মানব দেহের জন্য উপকারী।

বিঃদ্রঃ নিয়মিত পোষ্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন সেই সাথে এই পোষ্টটি আপনার ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

6 COMMENTS

  1. গরুর মাংস খেলে আমার অতিরিক্ত সেক্স বাড়ে, আমি তখন হস্তমৈথুন করি.. তাই এতে কি কোন ক্ষতি হবে?

    • হ্যালো নাঈম, আপনি হস্তমৈথুন করলে ১০০% ক্ষতিগ্রস্থ হবেন।

      ধন্যবাদ

    • খুব দ্রুত পোষ্ট করা হবে শাকিল আহমেদ। আমাদের সাথেই থাকুন

  2. গরুর মাংস খেলে আমার খুব খুব খুব সেক্স হয়, কিন্তু এলার্জি তে খুব সমস্যা করে। কি করবো একটু দয়া করে জানাবেন.. আমার বয়স 16 বছর, যশোর থেকে বলছি। আর আমার ওজন 41 কেজি

    • রিমা খাতুন, পরিমান মত গরুর মাংস খেলে তেমন সমস্যা হবে না। তবে অতিরিক্ত সেক্স এবং এলার্জি সমস্যা হলে গরুর মাংস না খাওয়া ভালো।

      ধন্যবাদ আপনাকে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here