ছোলার উপকারিতা, কেন প্রতিদিন ছোলা খাবেন?

0
256
ছোলার উপকারিতা

আমরা বাঙালী, তাই বাংলা খাবার আমাদের অতি প্রিয়। প্রতিদিন ছোলা খাওয়া এটা কোন নতুন কিছু নয়। রমজান মাসে ছোলা না থাকলে যেন ইফতারী টা যেন অসম্পূর্ণ থেকে যায়। ছোলা একটি স্বাস্থ্যকর খাবার যা আমাদের শরীরে শক্তি ও প্রোটিন যোগান দেয়। দীর্ঘক্ষণ পানিতে ভিজিয়ে রেখে তেল ও মশলা দ্বারা রান্না করা ছোলা আমাদের ঐতিহ্যের অংশই হয়ে গেছে।

ছোলাতে আমরা যা পেয়ে থাকি

১০০ গ্রাম ছোলাতে আমিষ থাকে প্রায় ১৮ গ্রাম, কার্বোহাইড্রেট থাকে প্রায় ৬৫ গ্রাম, ফ্যাট থাকে প্রায় ৫ গ্রাম, প্রায় ২০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ভিটামিন-এ থাকে প্রায় ১৯২ মাইক্রোগ্রাম, প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি-১ ও বি-২ পাওয়া যায় এবং ম্যাগনেশিয়াম ও ফসফরাস পাওয়া যায়।

সাধারনত বাংলাদেশে দুই ধরনের ছোলা পাওয়া যায়। একটি হলো দেশী ছোলা ও অন্যটি হলো কাবুলী ছোলা। দেশী ছোলা কালো ও আকৃতিতে ছোট হয়ে থাকে এবং ছোলা অনেক শক্ত হয়ে থাকে। আর কাবুলী ছোলা দেখতে উজ্জল রঙের এবং দেশী ছোলার থেকে শক্ত কম।

সাহরী থেকে ইফতার পর্যন্ত পানাহার থেকে বিরত থাকার কারনে আমাদের শরীরে ক্যালোরী ঘাটতি দেখা দেয়। আমাদের শরীর চলতে থাকে সাহরীতে পাওয়া ক্যালোরী দ্বারা। তাই ইফতারীতে আমাদের প্রচুর ক্যালোরী যুক্ত খাবার খেতে হয় যার মধ্যে ছোলা একটি অন্যতম খাবার। আমরা অনেকে ছোলা রান্না করে খাই আবার অনেকে শুধু সিদ্ধ করে লবণ দিয়ে খায়। এর মধ্যে সবচেয়ে উন্নত উপায় হলো কাঁচা ছোলা খাওয়া। অধিকাংশ মানুষ ছোলা রান্নার সময় অতিরিক্ত মসলা দিয়ে রান্না করে যা ইফতারীতে খাওয়ার পরে অনেকের পেটে অনেক রকম সমস্যা দেখা দেয়। তাই সর্বদা চেষ্টা করতে হবে মসলা কম দিয়ে রান্না করা।

ছোলার উপকারিতা

ছোলা আঁঁশ যুক্ত খাবার। আর আঁঁশ কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্য বিশেষ উপকারী। আঁঁশ হজম হয় না ফলে পায়খানার পরিমাণ বাড়ে এবং পায়খানা নরম থাকে। নিয়মিত পায়খানা হয় বলে ক্ষতিকর জীবাণু খাদ্যনালীতে থাকতে পারে না। ফলে খাদ্যনালীর ক্যান্সার হবার সম্ভাবনা কম থাকে।

শরীর ফিট রাখা ও কার্যক্ষমতা ধরে রাখার জন্য ক্যালোরীর প্রয়োজন হয়। আমরা ইফতারীতে ১০০ গ্রাম ছোলাতে ৩৬০ ক্যালোরী পেয়ে থাকি। ছোলা দীর্ঘক্ষণ ধরে শক্তির যোগান দেয় শরীরে। তাই শরীর ফিট রাখতে ছোলা একটি অপরীহার্য ভূমিকা পালন করে।

ছোলা ডায়াবেটিস রোগীর জন্য একটি আদর্শ খাবার। ছোলাতে শর্করা গ্লাইসেমিক ইনডেক্সের পরিমাণ কম। যা শরীরে প্রবেশ করলে অস্থির ভাব দূর হয়ে যায়। ছোলা খাওয়ার পর বেশ অল্প সময়েই হজম প্রক্রিয়া শুরু হয়ে হজম হয়ে যায়। ছোলার শর্করা গ্লুকোজ হয়ে দ্রুত রক্তে চলে যায় না। তাই ছোলা ডায়াবেটিস রোগীর জন্য উপকারী।

ছোলা শরীরের পেশি শক্তিশালী করতে সাহায্য করে। এছাড়া দাঁতের রোগ ও হাড় ক্ষয় রোধ করে থাকে। ছোলাতে প্রায় আমিষের ন্যায় প্রোটিন পাওয়া যায়। যা মাংসের থেকেও উত্তম ফল দেয়।

অনেকের হাতের পেশিতে ও পায়ের পেশিতে অস্বাভাবিক ব্যথা অনুভুত হয়ে থাকে। বিশেষ করে ইফতারীর পরে সালাত আদায় করতে গেলে এই রকম ব্যথা হয়ে থাকে। নিয়মিত ইফতারীতে ছোলা সিদ্ধ খেলে শরীরের পেশির ব্যথা দূর হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here