দাঁত শিরশির করা থেকে চিরতরে মুক্তি ও দাঁতের যত্ন সম্পর্কে পরামর্শ

1
129
দাঁত শিরশির করা

দাঁত শিরশির করার অনেক কারন আছে এবং এটি একটি বিরক্তিকর ও কষ্টকর বিষয়। খাবার, বিশেষ করে ঠান্ডা বা গরম তরল কিছু পান করতে গিয়ে বা দাঁত ব্রাশ করা, এমনকি শ্বাস নিতে গেলে অনেক সময় দাঁত শিরশির করে ওঠে। টক বা মিষ্টিজাতীয় খাবার খেতে গেলেও একই ধরনের অনুভূতি হতে পারে। কিন্তু দাঁত কেন শিরশির করে বা এ অবস্থা কখন সৃষ্টি হয়? আসুন আজ আমরা জানবো কেন দাঁত শিরশির করে ও তার প্রতিকার।

কারণঃ

১) দাঁতে গর্তের সৃষ্টি হলে
২) দাঁতে এনামেল ক্ষয় হয়ে গেলে
৩) অনেক দিনের পুরোনো ফিলিং করা থাকলে
৪) মাড়ি ক্ষয় হয়ে দাঁতের গোড়া বের হয়ে গেলে
৫) দাঁতে জোড়ালো কোন আঘাতপ্রাপ্ত হলে

প্রতিকারঃ

১) যাদের এমন সমস্যা হয় তারা টক বা মিষ্টি থেকে একটু দুরে থাকার চেষ্টা করবেন।
২) ভালো দন্ত চিকিৎসক দ্বারা স্কেলিং করিয়ে নিন, এতে পায়রিয়া দূর হবে।
৩) সকালে ও রাতে দুবেলা নিয়ম করে ভালো মানের পেষ্ট দ্বারা দাঁত ব্রাশ করুন।
৪) দাঁত ব্রাশ করার সময় খেয়াল রাখুন ব্রাশ যেন আড়া-আড়ি ভাব না হয়।
৫) ২ থেকে ৫ দিন ব্রাশ করার সময় সামান্য লবন মিশিয়ে নিতে পারেন ।
৬) সপ্তাহে ১ থেকে ২ বার মাউথ ওয়াশ দিয়ে ভালো ভাবে কুল-কুশি করুন।

দাঁতের যত্ন নেয়াঃ

১) নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করলে দাঁতের ফাঁকে কোনো জীবাণু তৈরি হতে পারবে না। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এবং সকালে নাশতা করার পরে দাঁত ব্রাশ করা অত্যান্ত জরুরী।
২) দাঁতের সংবেদনশীলতা কমায় এমন টুথপেস্ট ব্যবহার করুন। এমন টুথপেস্ট আপনাকে দাঁত শিরশিরের যন্ত্রণা থেকে রেহাই দেবে অনেকটা।
৩) ব্রাশ করবেন আস্তে আস্তে। দাঁতের ওপর বেশি চাপ দেবেন না। জোরে ব্রাশ করলে দাঁতের শিরশিরভাব আরও বেড়ে যেতে পারে।
৪) হালকা কোমল শলাকার ব্রাশ ব্যবহার করবেন।
৫) যেকোনো অ্যাসিডজাতীয় খাবার খাওয়ার সময় সচেতন হোন। যেমন- ফলের জুস, ভিনেগার, কোমল পানীয়—এসব দাঁতের এনামেল নষ্ট করে। তাই এসব খাবার পরই দাঁত পরিষ্কার করে ফেলুন।
৬) দাঁতে দাঁত ঘষা বা দাঁত চেপে রাখার অভ্যাস ত্যাগ করুন। এতেও এনামেলের ক্ষতি হয়।
৭) অনেকেই দাঁতের যে অংশ শিরশির করে, সে অংশটি ব্রাশ করতে চান না। কিন্তু এতে সমস্যা আরও বাড়ে।

আশা করি আপনি উপরোক্ত বিষয়গুলো একটু ভালোভাবে লক্ষ্য করলে আপনার দাঁত শিরশির করা থেকে মুক্তি পাবেন।

বিঃদ্রঃ নিয়মিত পোষ্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন সেই সাথে এই পোষ্টটি আপনার ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here