নামাজ পড়লে কি কি উপকার হয়

0
62
নামাজ পড়লে কি কি উপকার হয়

সমগ্র মুসলিম জাতির জন্য নামাজ ফরজ করে দিয়েছেন মহান আল্লাহ তালা। নামাজ পড়লে যেমন পরকাল পাওয়া যায় ঠিক তেমন দুনিয়াতেও উপকার পাওয়া যায়। একজন ব্যক্তি যখন মনযোগ দিয়ে নামাজ পড়ে তখন তার হাজারো রকম উপকার হয়। যারা নামাজ পড়েন না তারা সবচাইতে গোনাহগার ব্যক্তি হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। আর এক ওয়াক্ত নামাজ ছেড়ে দিলে ৭০ হাজার বছর জাহান্নামে শাস্তি পেতে হবে। তবে আজ জেনে নেয়া যাক নামাজ পড়লে দুনিয়াতে কি কি উপকার হয়।

পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের উপকারীতা

১) একজন ব্যক্তি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়তে গেলে তাকে অবশ্যই অজু করতে হয়। আর অজু করার ফলে শরীর থেকে ব্যাকটেরিয়া ও নাক মুখের জীবানু দূর হয়ে যায়।

২) ফজরের নামাজ পড়তে উঠলে সকালের আবহাওয়া শরীরে লাগে। ফলে শরীরে তেমন কোন রোগ বালাই হয় না। এছাড়াও ফজরে নামাজ পড়লে পেটে যে একটা চাপ বা ব্যয়াম হয় তাতে কোষ্ঠকাঠিণ্যতা দূর হয় এবং পায়খানা পরিষ্কার ভাবে হয়।

৩) নামাজে সিজদা দিলে মস্তিস্কে রক্ত দ্রুত প্রবাহিত হয়। ফলে আমাদের স্মৃতি শক্তি অনেকবৃদ্ধি পায়। তাছাড়া রক্তচাপের ফলে মস্তিস্কের শিরা গুলো সুস্থ্য থাকার কারনে রোগ হয় না।

৪) নামাজ পড়লে শরীরে একটি ব্যয়াম হয়ে যায়। যা সাধারন ব্যয়ামে হয় না। আর অনেকেই আছে কর্ম ব্যস্তার ফলে ব্যয়াম করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। কিন্তু নামাজ পড়লে সেই ব্যয়াম টি আমাদের সম্পন্ন হয়ে যায়।

৫) নামাজ পড়ার ফলে মানুষের মন থেকে চিন্তা, হিংসা, রাগ দূর হয়। অতিরিক্ত চিন্তার ফলে মানুষ ষ্ট্রোক করে। তাই নিয়মিত নামাজ পড়লে মন ফ্রেশ থাকে। চিন্তা, হিংসা দূর হয়। এতে ষ্ট্রোক হয় কম।

৬) নামাজে ওঠা বসা করা, সিজদা করার ফলে আমাদের পায়ের পেশির রক্ত চলাচলের ফলে ঝিঁঝিঁ ধরা বা বাঁত ব্যথা, হাটুর ব্যথা, পায়ের পাতা ফোলা সহ নানা রকম সমস্যা দূর হয়।

বিশেষ করে নামাজ একটি আদর্শ পন্থা যা দ্বারা মহান আল্লাহর একাকিত্ব লাভ করা সম্ভব। চেষ্ঠা করতে হবে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়া। একজন ব্যক্তি আল্লাহর পথে থাকলে আরও দশ জন তার অনুসারী হয়ে ওঠে। একমাত্র নামাজের সময় ধনী-গরীব বিবেচনা করা হয় না। সবাই কাধে কাধ রেখে আল্লাহর ইবাদতে সামিল হয়। তাই রমজান মাস শেষ, কিন্তু নামাজ শেষ হয় নি। আসুন নিজে নামাজ পড়ি অন্যকে নামাজ পড়তে উৎসাহিত করি।

বিঃদ্রঃ নিয়মিত পোষ্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন সেই সাথে এই পোষ্টটি আপনার ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here