প্রাকৃতিক উপায়ে রুপচর্চা

0
210

সাধারনত আমরা অল্প স্বল্প সবাই রুপ চর্চা করে থাকি। তো সেই রুপচর্চা টুকু যদি ঘরে বসে প্রাকৃতিক উপায়ে করা যায় তাহলে ক্ষতি কোথায়। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ছেলে মেয়ে সবাই এখন রুপ চর্চা করতে পছন্দ করে। কিন্তু রুপ চর্চাটা হতে হবে সম্পূর্ণ কেমিক্যাল মুক্ত। তবে চলুন জেনে নেয়া যাক রুপচর্চার প্রাকৃতিক উপায় গুলো।

প্রাকৃতিক উপায়ে রুপচর্চাঃ

১। মধুঃ মধু খুবই একটি গুরুত্বপূর্ণ পদার্থ। আপনি দৈনিক মধু ও লেবুর রস একসাথে মিশ্রিত করে ঠোটে লাগালে ঠোটের কালচে দাগ দূর হবে।

২। শশাঃ শশা খাওয়া যেমন উপকারী তেমন রুপচর্চাতেও দারুন উপকারী। দৈনিক শশার রস মুখে মাখলে মুখের উজ্জলতা বৃদ্ধি পাবে।

৩। আলুঃ আলু একটি পরিচিত ও প্রতিদিনের খাবার। সেই আলুকে বেটে চোখের নিচে লাগালে চোখের কালো দাগ চলে যাবে।

৪। কলাঃ পাঁকা কলা ভর্তা করে মুখে দিয়ে ৩০ মিনিট পরে ধুয়ে ফেলার পর আপনার তৈলাক্ত ত্বক থেকে মুক্তি পাবেন।

৫। বাতাবী লেবুঃ প্রতিদিনে আপনি যদি বাতাবী লেবুর রস হাতে পায়ে মাখেন তাহলে দেখবেন আপনার ত্বক নরম ও উজ্জলতা পাবে।

৬। নিম পাতাঃ নিম পাতা বেটে পেষ্ট করে গোসলের ১ ঘন্টা আগে সমস্থ দেহে মাখলে খোশপাচঁড়া থেকে মুক্তি পাবেন সেই সাথে আপনার ত্বক হয়ে উঠবে সজিব ও প্রানবন্ত।

৭। ডিম ও মধুঃ ডিমের সাদা অংশ ও মধু একসাথে মিশিয়ে ২০ মিনিট মুখে মেখে রাখুন। তার পরে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল ও টান টান ভাব আনতে সাহায্য করবে।

৭। মসুর ডালঃ রাতে অল্প পরিমানে মসুর ডাল ভিজিরে রেখে সকালে সেই পানি দিয়ে মুখ ধুলে আপনার মুখের ত্বক পরিষ্কার হবে সাথে ব্রণও দূর হবে।

৯। দুধ ও লেবুর রসঃ একসাথে পেস্ট করলেই হয়ে যাবে সুন্দর ও কার্যকরী স্ক্রাব। সপ্তাহে তিন দিন ব্যাবহার করুন। আপনার ত্বক হবে আরো পরিষ্কার।

১০। গাঁদা ফুলঃ রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে গাঁদা ফুলের পেষ্ট ত্বকে ব্যবহার করুন। এটি ত্বকে সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করুন।

সর্বশেষে, আপনি নিজে সুস্থ্য থাকুন এবং নিজের পরিবারকে সুস্থ রাখুন। মনে রাখবেন শুধু রুপচর্চা করলে হবে না পাশাপাশি প্রচুর পরিমানে বিশুদ্ধ পানি পান করতে হবে। তাই প্রতিদিন ৪ থেকে ৭ লিটার পানি পান করুন।

বিঃদ্রঃ নিয়মিত পোষ্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন সেই সাথে এই পোষ্টটি আপনার ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here