বাদাম খেলে কি হয়, বাদামের উপকারিতা সমূহ

0
248
বাদাম খেলে কি হয়

আপনি কি জানেন বাদাম খেলে কি হয়? বাদাম এমন একটি খাবার যা বিশ্বের যে কোন জায়গাতে পাওয়া যায়। বাদাম বিভিন্ন খাদ্য উৎপাদন করতে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। বাদাম অতি মাত্রার পুষ্টিগুণ সম্পন্ন, তাই যে কোন অনুষ্ঠানের খাবারের সাথে বাদাম পরিবেশন করা যায়। বাদামে প্রচুর পরিমানে খনিজ, ভিটামিন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাওয়া যায়। যা আমাদের শরীরে প্রতিদিন প্রয়োজন হয়।

“দি নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অফ মেডিসিন” পত্রিকাতে প্রকাশ করা হয় যে যারা নিয়মিত বাদাম খেয়ে থাকে তাদের অন্যদের থেকে হার্টের সমস্যা, শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা এবং ক্যান্সারে ঝুঁকি কম থাকে। উল্লেখ্য থাকে যে বাদাম একটি ফাইবার যুক্ত খাবার ফলে পেটের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে। চলুন জেনে নেয়া যাক বাদামের উপকারীতার বিস্তারিত।

কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়

বাদামে বিদ্যমান অসম্পৃক্ত ফ্যাট, ফাইবার ও প্ল্যান্ট স্টেরোল শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। বিভিন্ন খাবারের ফ্যাট শরীরের জন্য ক্ষতিকর হলেও বাদামের ফ্যাট শরীরের জন্য অত্যান্ত উপকারী। যাদের উচ্চ কোলেস্টেরল আছে তারা নিয়মিত বাদাম খেলে নিয়ন্ত্রণ থাকে।

ত্বক ও নখের জন্য উপকারী

বাদামে থাকা ভিটামিন শরীরের ত্বক ও নখ সুন্দর করতে কার্যকরী। যাদের অতিরিক্ত ব্রণ হয় এবং হাত-পায়ের নখ ভেঙে যায় বা অতিরিক্ত নরম থাকে তাদের জন্য বাদাম মেডিসিন হিসাবে ব্যবহার যোগ্য। বাদামে বিদ্যমান অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের টিস্যু হতে ব্রনের জীবানুু দূর করে। এছাড়াও যাদের ব্রণে পুঁজ জমে তারা বাদাম খেলে ব্রণ হতে পুঁজ বের হয়ে যায়।

হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়

ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড একটি হার্টের স্বাস্থ্য রক্ষাকারী ফ্যাটি অ্যাসিড। বাদামের ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড হার্ট অ্যাটাকের বিরুদ্ধে কাজ করে। তাছাড়া ভিটামিন-ই ধমনীর প্লাক হওয়া থেকে মুক্ত রাখে। বাদাম খেলে কি হয় অতিরিক্ত মোটা হয়ে যাওয়ার কারনে হার্ট বিট সাধারন অবস্থা থেকে ঝুঁকির দিকে থাকে তাই নিয়মিত এক মুঠো করে বাদাম খেলে হার্টের রক্তসঞ্চালন সাভাবিক থাকে ফলে হার্ট অ্যাটাক ঝুঁকি কম থাকে।

কোষ্ঠকাঠিণ্য দূর করে

বাদামে উপস্থিত ফাইবার আমাদের হজমক্রিয়া ঘটাতে সহযোগীতা করে। যাদের কোষ্ঠকাঠিণ্য সহ পেটে প্রচুর ব্যথা হয়ে থাকে তারা এক মুঠো বাদাম খেয়ে এক গ্লাস ঠান্ডা পানি খেলে ১৫ থেকে ৩০ মিনিটের মধ্যে পায়খানা পরিষ্কার ভাবে হয়ে যাবে এবং কোষ্ঠকাঠিণ্য দূর হবে। নিয়মিত কোষ্ঠপরিষ্কার হওয়া সবার জন্য অতীব জরুরী।

রক্ত জমাট বাঁধার হাত থেকে রক্ষা করে

বাদামে রয়েছে এল-আরজিনিন অ্যামিনো অ্যাসিড। যা আমাদের ধমনীতে রক্ত সঞ্চালন উন্নত করে। এল-আরজিনিন ধমনীকে নমনীয় হতে সাহায্য করে। অনেক সময় ধমনীতে রক্ত জমাট বেধে যায়। তাই নিয়মিত বাদাম খেলে এল-আরজিনিন ধমনীর রক্ত সঞ্চালন সাভাবিক রাখে।

শুক্রাণু বা বীর্য বৃদ্ধি ও ঘন করে

বাদাম সকল বয়সের পুরুষের শুক্রাণু বা বীর্য বৃদ্ধি ও ঘন করতে পরিপূরক খাবার হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। যাদের শুক্রতারুল্য সমস্যা আছে এবং শুক্র কম উৎপন্ন হয় তারা নিয়মিত ২০ থেকে ২৫ টি বাদাম খেলে শুক্র বৃদ্ধি ও ঘন হবে। মনে রাখবেন বীর্য একটি পুরুষের অহংকার। যে পুরুষের বীর্য ভালো সেই পুরুষ তার স্ত্রীর কাছেও ভালো।

বিষন্নতা দূর করে

বাদাম খেলে মস্তিষ্কে রক্তচাপ সাধারন থাকে এবং প্রফুল্লতা সৃষ্টি করে। মাথা ব্যথা সহ শরীরের ক্লান্তি ভাব দূর করতে বাদাম বেশ উপকারী। তাই যারা প্রতিদিন বাদাম খায় তারা অন্যদের থেকে বেশি প্রফুল্ল থাকে ফলে মনে ও দেহে বিষন্নতার কোন ছাপ পরে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here