ব্রেকআপ হলে করনীয়, ব্রেকআপের পর যে বিষয়গুলো এড়িয়ে চলবেন

0
145
ব্রেকআপ হলে করনীয়

ব্রেকআপ! কথাটা সবাই একটু চোখ কুঁচকে দেখবেন কিন্তু আসলে নেগেটিভ না নিয়ে পজেটিভ নেওয়া উচিৎ। প্রতি ২৪ ঘন্টায় গড়ে সারা পৃথিবীতে ২ কোটি ৩ লক্ষ ৯২ হাজার মানুষ ব্রেক আপ করে থাকে। আমাদের কাছে ব্রেকআপ বিষয়টি ভাত মাছের মত হয়ে গেছে। একটা প্রশ্ন সেই সকল মানুষের কাছে, ব্রেকআপ যখন করবেন তাহলে রিলেশন করার মানে টা কি? আর হ্যা আপনি- আপনি নিজেও কি ব্রেকআপ করে সুখে আছেন?

উল্লেখ্য থাকে যে, ক্যালিফোনিয়ার একজন ডঃ কিছু পরীক্ষা করার পরে জানিয়েছে যে, ব্রেকআপ করা মানুষগুলো ভবিষৎতে উন্নতি করেছে ৭৭.৯%। তাই বলে ব্রেকআপ করে নিজের ক্ষতি করতে হবে এমন কোন কথা নেই। তাই আজ দেখা যাক ব্রেকআপ হলে করনীয় কি?

আপনার যা করনীয়ঃ
১) যতটা সম্ভব ব্রেকআপ না করার চেষ্টা করুন। যদিও ব্রেকআপ হয় তাহলে প্রিয় মানুষটিকে এড়িয়ে চলুন এবং প্রিয় মানুষটির সকল জিনিসপত্র থেকে দূরে থাকুন। মোবাইলের গ্যালারি থেকে সকল প্রকার ছবি বা ভিডিও ডিলিট করে ফেলুন। বিরহ বা কষ্ট বিদারক গান বা ছবি এবং মুভি দেখা বন্ধ করুন। নিজেকে বোঝান, নিজেকে সময় দিন, নিজেকে ভালবাসুন।
২) নিয়মিত রাত ৯ টা ১০ টার মধ্যে ঘুমিয়ে পড়ুন এবং ফজরের নামাজ বা পার্থণা করার চেষ্টা করুন। নিয়মিত স্কুল কলেজ ও অফিস আদালতে যাবেন, সবার সাথে মিশতে থাকুন। তবে ব্রেকআপের কথা মাথায় আনা যাবে না। যদিও মাথায় চলে আসে তাহলে মন অন্যদিকে ঘুড়িয়ে ফেলার চেষ্টা করুন।
৩) নিয়মিত খাওয়া দাওয়া করুন এবং যে খাবারটি বেশি খেতে পছন্দ করেন সেটা বেশি করে খাবেন। তবে প্রিয় মানুষটির সাথে যে খাবার গুলো খেতেন সেগুলো পরিহার করুন।
৪) যে জায়গা গুলোতে আপনার প্রিয় মানুষের স্মৃতি জড়িয়ে আছে সেই জায়গা গুলোতে না যাওয়ার চেষ্টা করুন। বুঝতে শিখুন, যা হারাবার তা হারিয়ে গেছে। মিছে মিছে তার জন্য সময় নষ্ট করবেন না।
৫) ভুলেও কোন প্রকার নেশাগ্রস্থ দ্রব্যাদির কাছে যাবেন না। মানুষ নেশা গ্রস্থ হলে তার পুরোনো কথা বেশি মনে পরে। আর নেশা গ্রহন করলে আপনার এবং আপনার পরিবারের মান সম্মান নষ্ট হবে। তাছাড়া সকলেই জানে নেশার ফাঁদে পড়ে হাজার হাজার মানুষের জীবন ধ্বঃস হয়ে যাচ্ছে। তাই নেশা গ্রহন না করে বরং নেশার বিরুদ্ধে কাজ করুন।
৬) সবসময় শুয়ে কাটাবেন না, বিকালে বাড়ীর ছাদে বা খোলা মাঠে খেলা ধুলা করুন। ছোট বাচ্চাদের সাথে সময় কাটাতে শিখুন, তাদের সাথে হাসা হাসি করুন।
৭) বই পড়ুন, প্রচুর বই কিনুন। বই মানুষের সাথে কথা বলে তাই ভালো মনিষিদের জীবনী পড়ুন এতে অনেক কিছু জানতে পারবেন। তবে হ্যা, ছ্যাকা খাওয়া কোন বই পড়বেন না। এটা আপনার অতীতকে আপনার সামনে তুলে ধরবে।
৮) সামাজিক যোগাযোগের সকল ওবেসাইটে নিজের কষ্টের কথা বা মনের কথা পোষ্ট করা থেকে বিড়ত থাকুন। এটা একটা কমন বিষয় যেমন- ফেসবুক, টুইটার ওপেন করলে দেখা যায় হাজারো ছ্যাকা খাওয়া পোষ্ট। এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনার প্রতি বিরুপ ধারনা তৈরী হবে আপনার বন্ধুদের বা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম গুলোতে। তাই নিজের ব্যক্তিত্ব টা ধরে রাখতে শিখুন।
৯) সামর্থ্য অনুযায়ী শপিং করুন। এতে আপনার ঘোরাঘুরিও হবে এবং ছোটখাটো কেনাকাটা হবে। বন্ধুদের সাথে বা পরিবারের সাথে বেড়িয়ে পড়ুন কোথাও আড্ডা বা ঘুরতে যাওয়ার জন্য। বেশ কিছু ফানি ছবি তুলুন নিজের সেই ছবি গুলো নিজে নিজেই দেখুন আর হাসুন। আর বলুন আমি অনেক কিছু করবো।
১০) সর্বশেষ, প্রিয় মানুষটিকে ঘৃণা করতে শিখুন। ধারনা করুন আপনার জায়গাতে আজ অন্য কেউ। এটা ভেবে প্রচুর পরিমানে ঘুণা করুন। আর হ্যা, প্রিয় মানুষটির সাথে সকল যোগাযোগের মাধ্যম বন্ধ করে দিন।

পরামর্শঃ
ব্রেকআপ হতে পারে এটা স্বাভাবিক। তবে একটু ভাবনা চিন্তা করে একটি সর্ম্পকে আবদ্ধ হওয়া উচিৎ। এতে আপনি বুঝতে পারবেন কোনটা সঠিক আর কোনটা ভুল। আপনি ভুল করলে এই ভুলের মাশুল আপনাকেই গুনতে হবে। তাই যা কিছু করবেন খুব ভেবে চিন্তে করবেন। সকলের জন্য শুভকামনা।

বিঃদ্রঃ নিয়মিত পোষ্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন সেই সাথে এই পোষ্টটি আপনার ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here