সাফি সিরাপ খেলে কি কি উপকার পাওয়া যায়

0
2793
সাফি সিরাপ

সাফি সিরাপ টি হামর্দদ ল্যাবরেটরিজ এর একটি ইউনানী মেডিসিন। হামদর্দের বিভিন্ন ২২ টি পণ্যের মধ্যে সাফি, শরবত রূহ আফজা, সিঙ্কারা, রোগান বাদাম শিরিন এবং পাচনল অধিক পরিমানে বিখ্যাত। অনেকেই সাফির বদলে অ্যালোপ্যাথিক মেডিসিন সেবন করে থাকেন। কিন্তু অ্যালোপ্যাথিক মেডিসিনে নানা রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে। এইদিক থেকে সাফি সিরাপের কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।

এই সাফি সিরাপে কেন খাবেন?

অনেকের ঘা, পাঁচড়া, দাদ, বিখাউজ সহ নানা রকম চর্মরোগ থাকে তাদের জন্য সাফি একটি উৎকৃষ্ট সিরাপ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। এছাড়াও সাফি সেবন করলে কাশি, গলার ইনফেকশন, পেটের সমস্যা, কোষ্ঠকাঠিণতা সহ শরীরের ত্বক সুন্দর করে। সাফি সিরাপের সবচেয়ে বড় গুণ রক্ত পরিষ্কার করে থাকে। ঘামাচি, খুঁজলি সহ বিভিন্ন চুলকানি থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করে।

সেবন বিধি

প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য দুই চা চামচ করে দিনে দুই বার এবং শিশুদের জন্য ১/২ চা চামচ করে দিনে এক বার সেবন যোগ্য। এছাড়া সাফি সিরাপের প্যাকেটের গায়ে সেবন বিধি দেয়া আছে, সেখানে লক্ষ্য করুন।

সেবনের সময় নিষেধ

সাফি সিরাপ সম্পূর্ণ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন। তবে অ্যালকোহল জাতীয় পানি বো নেশা জাতীয় দ্রব্যাদির সাথে সাফি সম্পূর্ণ নিষেধ। সিগারেট ও নেশা জাতীয় দ্রব্য পরিহার করে সাফি সিরাপ সেবন করতে হবে।

উপাদান

প্রতি ৫ মিলি সাফি সিরাপে নিম ১.২৫ মিগ্রা, হলুদ ১.২৫ মিগ্রা, বেসিল ২.৫০ মিগ্রা, ওয়ারমউড ২.০০ মিগ্রা, সেননা ১৭.০০ মিগ্রা, রৌম ইমোডি ১৩.০০ মিগ্রা, বন্য সেনা ১২.৫০ মিগ্রা, রোজ ২.০০ মিগ্রা, ইস্ট ইন্ডিয়ান গ্লোব থিসেল ২.০০ মিগ্রা, ফুমারিয়া ২.০০ মিগ্রা, চেরেটা ১.২৫ মিগ্রা সহ অন্যান্য উপাদান রয়েছে।

সর্বশেষে, সর্বপ্রকার মেডিসিন অবশ্যয় চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহন করে সেবন করা উচিৎ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here