হাঁটুর হাড় ক্ষয়, হাড় ক্ষয় হলে আপনি কি করবেন?

0
150
হাঁটুর হাড় ক্ষয়

হাড় শরীরের সবচেয়ে বড় একটি অংশ। ১৬ বছর থেকে শুরু করে ২০ বছর পর্য়ন্ত হাড় গঠন একটি সীমাবদ্ধতার মধ্যে থাকে কিন্তু বয়স বেড়ে যাওয়ার সাথে সাথে হাড় ক্ষয় শুরু হয়। কিন্তু আমরা এটা বুঝতে পারি না কারন হাড় ক্ষয় একবারে হয় না। যা ধীরে ধীরে ক্ষয় হতে থাকে। একসময় মানব দেহে অনেক বড় বিপদ ডেকে আনে। হাড় ক্ষয় মূলত পুরুষের থেকে নাড়ীদের বেশী হয়ে থাকে। তবে সবার ক্ষেত্রেই ৪০ বছর পার করার পরে এই সমস্যা বেশি দেখা দেয়।

কি কারনে হাড় ক্ষয় হয়ঃ
১) মেয়েদের ক্ষেত্রে অনিয়মিত মাসিকের কারনে এটা হয়।
২) পুরুষের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত স্বপ্নদোষের কারনেও হতে পারে।
৩) অতিরিক্তি সময় চেয়ারে বা বিছানাতে বসে সময় কাটালে।
৪) খাবারে প্রোটিন বা শর্করা, ভিটামিন না থাকলে এমন হতে পারে।
৫) শরীরের তুলনায় কম পরিমানে ভিটামিন ও ভিটামিন ডি থাকলে।
৬) অতিরিক্ত চিন্তা বা ডিপ্রেশনে থাকলে বা মানসিক সমস্যাতে ভুগলে।
৭) শরীরে হরমোন ও ইস্ট্রোজেন হরমোনের মাত্রা তারতাম্য থাকলে।
৮) শরীরে অনেক পুরাতন বা জটিল রোগ থাকলে এবং রক্তে সমস্যা থাকলে।

হাড় ক্ষয়ের লক্ষনঃ
মূলত হাড় ক্ষয় তেমন একটা স্বাভাবিক ভাবে বোঝা যায় না কিন্তু বয়স বাড়ার সাথে সাথে আপনি বুঝতে পারবেন। কিছু উপসর্গ যেমন- হাঁটা চলা করতে সমস্যা বা ব্যথা অনুভব করা। অনেক ক্ষণ বসে থেকে উঠে দাড়ালে মাজার মধ্যে ও হাটুর মধ্যে ব্যথা অনুভব করা, পায়ের গোড়ালিতে ব্যথা, ঘাড়ে ব্যথা হওয়া এবং শরীরের শক্তি কম পাওয়া।

পরিক্ষা সমহঃ
হাড় ক্ষয়ের উপসর্গ দেখা দিলে অবশ্যই খুব দ্রুত এক্স-রে করতে হবে ব্যথাযুক্ত স্থানে।

হাড় ক্ষয়ে করনীয়ঃ
১) পরিমান মত শাক সবজি খেতে হবে।
২) নিয়মিত ঠান্ডা বিশুদ্ধ পানি পান করতে হবে।
৩) নিয়মিত ঘুমানোর পূর্বে এক গ্লাস দুধ পান করতে হবে।
৪) নিয়মিত ভাবে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি খেতে হবে।
৫) নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে সাথে সিগারেট ও মাদক বন্ধ করতে হবে।

হাড় ক্ষয়ের চিকিৎসাঃ
হাড় ক্ষয় থেকে মুক্তির জন্য আপনার হাড়কে শক্তিশালী করতে হবে এবং হাড় ক্ষয় কমানোর বিভিন্ন ধরনের ওষুধ সেবন করতে হবে।

অবহেলার কারনে পরিণতিঃ
হাড় ক্ষয় প্রথম দিকে তেমন কোন তেমন উপসর্গ থাকে না কিন্তু যখন আপনার যন্ত্রণাদায়ক অবস্থা সৃষ্টি হবে তখন বুঝতে পারবেন। আর হাড়ে ফাটল ধরে বা হাড় ভেঙে গেলে বড় ধরনের ঝুঁকির মধ্যে পরে যাবেন। হাড় ক্ষয়ের কারনে হাড় দুর্বল ও ভঙ্গুর হয়ে যায় আর যার ফলে সামান্য আঘাত লাগলে কিংবা পড়ে গেলে আপনার ব্যথা অনুভূত হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here